পায়ে হেঁটেই সান্দাকফু, পাহাড়ি পথের বাঁকে অপেক্ষা করে রহস্য

Related Articles

করোনা কালে এক বছর ঘরবন্দি। বেড়াতে যাওয়ার উপায় ছিল না মোটে। কিন্তু পর্যটনস্থলগুলি খুলে যেতেই আতঙ্কের সঙ্গে আপোস করে চলছে ছুটি কাটানো। এই সময়ে পাহাড়-পিপাসু মানুষের সেরা ঠিকানা হতে পারে রাজ্যের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ সান্দাকফু। ভিড় নেই, করোনার প্রকোপ নেই, শুধু নিজে স্বাস্থ্যবিধি মানলেই সুস্থ ভাবে ঘুরে আসা যায় হাতের কাছে এই এলাকা থেকে। দেখা যায় কাঞ্চনজঙ্ঘা।

ট্রেনের টিকিট কাটা হয়েছিল হঠাৎ। এক বন্ধুর সঙ্গে বেরিয়ে পড়া গেল উত্তরের উদ্দেশে। ঠান্ডা জাঁকিয়ে পড়ার আশঙ্কা। সব জেনেও ঠিক হল সান্দাকফু ওঠা হবে হেঁটে। সাধারণত সান্দাকফুর উদ্দেশে হাঁটা শুরু হয় মানেভঞ্জন থেকে। কেউ কেউ ধোতরে দিয়েও ওঠেন। নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে মানেভঞ্জন যাওয়া হল গাড়িতে।

সান্দাকফু নিয়ে অনেক গল্পই শোনা। চোখের সামনে অমন করে কাঞ্চনজঙ্ঘার ‘ঘুমন্ত বুদ্ধ’ দেখতে পাওয়া যে সৌভাগ্যের ব্যাপার, যাওয়ার আগে সে কথা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন অনেকেই।বলেছিলেন, রহস্যে মোড়া থাকে উত্তরবঙ্গের এই পাহাড়ি রাস্তা। সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যানের ভিতর দিয়ে যে পথ সান্দাকফু যায়, তাতে বাঁকে বাঁকে লুকিয়ে থাকে নানা আকর্ষণ।

More on this topic

Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Advertisment

Popular stories

‘বেল বটম’ টিজার: অক্ষয় কুমার অনাবৃত “80 এর দশকে থ্রোব্যাক” এর যাত্রা

বেল বটম টিজারটি সোমবার সকালে সোশ্যাল মিডিয়ায় নেমেছিল এবং এটি আকর্ষণীয় দেখাচ্ছে। টিজারটি শুরু হয়েছে চলচ্চিত্রের প্রধান অভিনেতা অক্ষয় কুমারের একটি ভিডিও ক্লিপ দিয়ে,...

UIDAI আধার পিভিসি কার্ড প্রকাশ করেছে; চার্জ, বৈশিষ্ট্য এবং কীভাবে প্রয়োগ করতে হয় তার জন্য এখানে চেক করুন

ভারতের অনন্য পরিচয় কর্তৃপক্ষ (UIDAI) ঘোষণা করেছে যে ব্যক্তিরা এখন পিভিসি কার্ড ফর্মে তাদের আধার মুদ্রণের আদেশ দিতে পারেন can কর্তৃপক্ষ পরিষেবাটির জন্য নামমাত্র...